শ্রীপুরে খাস জমিতে নির্মিত বহুতল ভবন উচ্ছেদে অভিযান

সাইফুল আলম সুমন,নিজস্ব প্রতিবেদক:
গাজীপুরের শ্রীপুরে সরকারি খাস জমি থেকে বহুতল ভবন উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। রোববার (০৯ ডিসেম্বর) সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফাতেমাতুজ জোহরার নেতৃত্বে শ্রীপুর পৌর বাজারে সরকারি খাস জমিতে গড়ে উঠা চারতলা ভবনটি ভাঙার কাজ শুরু করে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। এসময় শ্রীপুর থানা ও জেলা পুলিশের একাধিক সদস্য মোতায়েন ছিল। ৩ শতক জমি দখল করে চারতলা একটি ভবন নির্মাণ করেন পৌর এলাকার ভাংনাহাটি গ্রামের মৃত হাবিবুর রহমানের ছেলে মবিন মুক্তার। সে সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে দলিল লেখকের কাজ করেন।

উপজেলা ভূমি অফিস সূত্রে জানা যায়,, উপজেলা সদরের বাজার রোডের ৩তলা ভবনটি তৈরি করেন ভাংনাহাটি গ্রামের মনিব মুক্তার। সরকারের এসএ ও আরএস ১নং খতিয়ানভূক্ত যথাক্রমে ২৩১৩ ও ৪৭৭৩নং দাগের ৩শতাংশ জমিতে এই ভবনটি তৈরি করা হয়। এটি উচ্ছেদের জন্য জেলা প্রশাসন থেকে ৩বার নোটিশ দিলেও দখলদার সাড়া দেননি। ফলে সরকারি সম্পত্তি উদ্ধারে জেলা প্রশাসন শ্রীপুর উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেয়। সেখানে থাকা ভবনটির নিচতলায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও উপরে আবাসন ছিল। রোববার সকালে উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) এর নেতৃত্বে পুলিশ ও দমকল বাহিনীর সদস্যদের উপস্থিতিতে ভবন ভাঙার কাজ শুরু হয়।

শ্রীপুর উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভৃমি) ফাতেমাতুজ জোহরা বলেন, ইতিপূর্বে সরকারি জমিতে গড়ে উঠা ভবনটির কথিত মালিককে তিনবার উচ্ছেদ অভিযানের নোটিশ প্রদান করা হয়েছিল। সেই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সে (মবিন) চারতলা ভবন নির্মাণ কাজ শুরু করে। উপজেলা ভূমি অফিস থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের বিষয়ে মামলা করা হলে জেলা প্রশাসক গত মাসে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করার নির্দেশ দেন। তিনি আরো বলেন, ভবনের পাশে ছোটখাটো আরো বেশ কয়েককটি দোকান থাকায় ভবনটি পুরোপুরি ভাবে ভাঙা যাচ্ছে না। তবে এমন ভাবে ভাঙা হচ্ছে যাতে ভবনটি ব্যবহার অনুপোযোগী হয়।

মন্তব্য

মন্তব্য