শহিদুলের বিয়ের প্রতারণার শিকার মিনু

স্টাফ রিপোর্টার // শ্রীনগর উপজেলার ভাগ্যকুল গ্রামের আবুল হোসেন কাজী’র পুত্র শহিদুল ইসলাম কাজী’র বিয়ের নামে নাটকের প্রতারনার শিকার হলেন কামারগাঁও গ্রামের মোহর কাশারুর কন্যা মোসাং মিনু আক্তার। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মিনু আক্তারের সাথে শহিদুল ইসলাম কাজী’র প্রেমর সম্পর্ক গড়ে তুলে। কিছু দিন যেতে না যেতেই শহিদুল ইসলাম কাজী’র বিয়ের প্রস্তাব দিলে মিনু আক্তার তার প্রস্তাবে রাজি হলে। শহিদুল ইসলাম কাজী’র ঢাকা জজ আদালতে ০২ ফ্রেরুয়ারী২০১৫ইং তারিখে ঢাকা জজ আদালতের মাননীয় নোটারী পাবলিকের কার্যলয়ে ১লক্ষ টাকার দেন মহরে বিবাহ আবদ্ধ হয়। আমাদের বিয়ের সময় স্বাক্ষী ছিলেন মোঃ মাহাবুব পিতাঃ আব্দুল শেখ ও মিতু আক্তার, পিতাঃ মোঃ আব্দুর রহমান, রেজিঃ নং ০১/০২-০২-১৫, মিনু আক্তার বলেন ২০১৭ইং সাল পর্যন্ত দাম্পত জীবন ভালোই চলছিল। ২০১৮ইং সালের জানুয়ারি থেকে নানা টালবাহানা শুরু করে। হটাৎ আমার কাছে আসা এমনকি যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। আমি দীর্ঘদিন বিদেশে চাকুরী করে দেশে আসার পর আমার সাথে শহিদুলের সম্পর্কে আবদ্ধ হয়ে আমাদের বিয়ে হয়ে। সংসারে জীবনের সময় বিভিন্ন অজুহাতে আমার কাছ থেকে কষ্টে অজিত টাকা ময়সা নিয়ে নেয়। দীর্ঘদিন অপেক্ষা করার পর আমি দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডাইরী করি। ডাইরী নং- ১০৩৮/ ২৭-১০-১৮। উলে­খ, গত ২৭ অক্টোবর ২০১৮ ইং তারিখ রোজ শনিবার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার সামনে মিনু আক্তারকে কাঁদতে দেখা যায়। এ ব্যাপারে মিনু আক্তার ও তার পরিবার এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তি বর্গ ও পুলিশ প্রশাসনের সহয়তা কামনা করেছেন।

মন্তব্য

মন্তব্য