বি,আই,ডব্লিউ,টি,এর ড্রেজিং বিভাগের বিরুদ্ধে কংশ নদী পূন:খননের নামে ফরিদ মিয়ার মালিকানা সম্পত্তি নদী গর্ভে বিলীন করে দেওয়ার অভিযোগ।

ষ্টাফ রিপোর্টার:- বি,আই,ডব্লিউ,টি, এর ড্রেজিং বিভাগ এর বিরুদ্ধে নদী পূন:খননের নামে ব্যক্তি মালিকানা সম্পত্তি ও বাগান বাড়ী রাতের আধারে ড্রেজিং মেশিন দিয়ে কেটে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যপারে ভুক্তভোগী ফরিদ মিয়া জানান নেত্রকোনা জেলার বরহাট্রা থানার সিংধা জোয়াল ভাঙ্গা মৌজার এসত্র ৪১২ খতিয়ানে ২৮৫৫,২৮৫৭,২৮৫৯ নং দাগে এবং এসত্র ৩৩৬ নং খতিয়ানে ২৮৫৬,২৮৫৮ নং দাগ এবং সর্বশেষ হালনাগাদ জরিপ বি,আর,এস ৫৩৭৬,৫৩৭৭,৫৩৭৮,৫৩৭৯ দাগ সমূহ সম্পত্তি আমি পৈত্রিক ওয়ারিশ সূত্রে ও খরিদ সূত্রে মালিক দখলদার থাকিয়া উহাতে টিনের ঘর নির্মান এবং বিভিন্ন ফসলাদীর পাশা পাশি ফলস বাগান এবং বৃহৎ অংশে, আম, কাঠাল, রেইট্রি ও জারুল গাছের বাগান গড়ে তুলি। কংশ নদীর সীমানার পরে ৩০ফুট সরকারী হালট তার পর উল্লেখিত আমার সম্পত্তি। বর্তমানে কংশনদী পূণ:খনন কাজ চলিতেছে গত ১৭/৮/১৮ইং তারিখে রাতের আধারে ড্রেজিং মেশিন দিয়ে ফরিদমিয়ার নিজস্ব বাগান ও সম্পত্তির প্রায় এক তৃতীয়াংশ নদীর সাথে মিশিয়ে দেয়। ইহাতে প্রায় ১০ (দশ) লক্ষ টাকা মূল্যের গাছ পালা প্রায় ৩৬ লক্ষ টাকার মূল্যের জমি সর্বমোট ৪৬ লক্ষ টাকা ক্ষয়ক্ষতি সাধিত হয়। ফরিদ মিয়া ঘটনাবলী স্থানীয় ৬ নং সিংধা ইউপি চেয়ারম্যান কে অবহিত করিলে তিনি স্বরে জমিনে তদন্ত করে ঘটনার একটি লিখিত প্রত্যায়ন পত্র দেন। জানা যায় যে ড্রেজিং মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে কাটা হয়েছে উহার রেজি: নং ৯৪৪০ ড্রেজার চালক ইয়াকুব গং ইঞ্জিনিয়ার সুজন উল্লেখিত কাজের তদারকী করেন।
এই বেআইনি ঘটনাবলী ফরিদ মিয়া বি,আই,ডব্লিউ,টি এর ড্রেজিং বিভাগ এর অতি:প্রধান প্রকৌশলী ও প্রকল্প পরিচালক মো: সাইদুর রহমান এর বরাবর লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন প্রতিকার পাওয়ার জন্য। ফরিদ মিয়া একজন অবসার প্রাপ্ত কর্পোরাল ও তার স্ত্রী মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কিন্তু তার পরিবারবর্গ আতংকে দিন কাটাচ্ছে কেননা আবারও রাতের আধারে যদি অবশিষ্ট সম্পত্তি টুকু ড্রেজার মেশিন দিয়ে বিলীন করে দেয় বি,আই,ডব্লিউ টি এ ড্রেজিং মেশিন। উল্লেখিত ব্যাপারে ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ফরিদ মিয়া নৌপরিবহন মন্ত্রীর সদয় দৃষ্টি কামনা করেছেন।

মন্তব্য

মন্তব্য