ভাবির সাথে স্বামীর পরকিয়ার কথা পাশ করাই সাতকানিয়ায় পুত্র বধূ খুন

 

মো ইদ্রিস সাকিল সাতকানিয়া চট্টগ্রাম প্রতিনিদিঃ-চট্টগ্রামের সাতকানিয়া ৬নং এওচিয়া ইউনিয়নের চনখোলা হালুয়াঘোনা ১নং ওয়ার্ডেয় চৌকিদার বাড়ীর নুর আহমদের পুত্র মোকতার আহমদের স্ত্রী জোছনা আক্তারকে বাবির সাথে পরকিয়ার যের দরে বড় বাবি মুচুদা খাতুন, শাশুর নুর আহমদ, শাশুরি কুনচুমা খাতুন গত ১২সেপ্টেম্বর দিবাগত রাতে পরিকল্পিত বাবে খুন করে সিলিংগ ফেনের সাথে জোলিয়ে রেখে বসত বাড়ি থেকে সবাই পালিয়ে গিয়েছে।
রহস্যজনক মৃত্যু নিয়ে এলাকায় ধূম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। জানা যায়, সাতকানিয়া ৬নং এওচিয়া ইউনিয়নের চনখোলা হালুয়াঘোনা ১নং ওয়ার্ডের চৌকিদার পাড়া এলাকার নুর আহমদের পুত্র মোকতার আহমদের সাথে বাঁশখালী ৫নং কালীপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের মৃত্যু রফিক আহমদের মেয়ে জোছনা আকতার (২১) এর সাথে পারিবারিক ভাবে বিগত দের বছর পূর্বে তাদের বিবাহ হয়।

নিহতের মা ফিরোজা বেগম বলেন, মোকতার আহমদ বিগত দের বছর পূর্বে বিবাহের পর থেকে মেয়ে কে বাবার বাড়ি থেকে যোতুকের টাকা সন্নের জন্য স্বামী, শাশুড়ি ও বড় ভাইয়ের বৌ বিভিন্ন বাবে নির্যাতন করতো বলে জানান। গত সাপ্তাহে ফের আবার যোতুকের টাকা সন্নের জন্য সবাই মিলে মারধর করেন। পরে ফোনে করে কি জন্য এই সব করতেছে সেই সম্পকে জোছনা আক্তার বলে আমার স্বামীর সাথে তার বড় ভাইয়ের বৌ মুচুদা খাতুনের সাথে অবৈধ সম্পকের জন্য জোছনা আকতারের উপর এই সব নির্যাতন করতো বলে বড় ভাই ও মাকে ফোন বলে জানান। মা মেয়েকে বলেন তুই একটু সহকরে আর দুই একটি দিন বৃহস্পতিবার পযন্ত তাক তোর ভাই বৃহস্পতিবার সকালে গিয়ে তোকে কয় একদিনের জন্য তোর বাবার বাড়িতে নিয়ে আসবে, আর তোর যোতুকের সব হিসাব সমাধান করে দিবে বলেছে তোর ভাইয়ারা, আর আসা হলনা দুই মাস ছয় দিন বয়সি অবুজ ছেলেকে নিয়ে বাবার বাড়ি আর অবুজ শিশুরটি নানার বাড়িতে।

১৩ সেপ্টেম্বর সকাল ৬ টাই মা ঘুম হইতে উঠে ঘরের বাইরে আসার সাথে সাথে হঠ্যাত বাইরের লোকেরা কথা বলা বলি শব্দ মায়ের কানে এসে পৌছলে মা ছেলেদের ঘুম থেকে ডেকে তুলে বলেন রাস্তা কে জানি কি বলতেছে বাবা একটু গিয়ে দেক, ভাই এসে শুনে তাদের বোন নাকি মারা গিয়েছে। মৃত্যু খবর শুনে ভাইরা ঘটনা স্থলে গিয়ে দেখতে পাই দক্ষিণ দুয়ারী ঘরের রোমের দরজাই বাইরের দিখে হুক মারা রোমের বিতরে সিলিংগ ফেনের একটি পালকের সাথে চিকন রশি গলায় পেচানো ও বসা অবস্থায় দেখতে পাই এবং গলায় হাতে আঘাতের চিহ্ন থাকায়, ১ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ ইউচুব, ৬নং এওচিয়ার ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মানিক চৌধুরীর সাথে ফোনে যোগাযোগ করে ঘটনাটি জানান, পরে দৈনিক আলোকিত সকাল পত্রিকার প্রতিনিধি ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটানাটি জানতে পেরে পুলিশেকে খবর দিছে বলে জানান।
১১ টা ৪০ মিনিটের দিখে সাতকানিয়া থানার দায়িত্বশীল কর্মকর্তা এস আই আকবর হোসেন ঘটানা স্থল এসে লাশ দেখে জানান, জোছনা আক্তারের মৃত্যু নিয়ে সন্দেহ হওয়াতে পুলিশের পক্ষ থেকে লাশ পোষ্ট মর্টে‌মের করার জন্য এ্যামবুলেন্স করে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন। রিপোর্ট পাওয়ার পর আইন গত ব্যবস্থতা নিবে বলে জানান সাতকানিয়া থানার এস আই আকবর হোসেন।

মন্তব্য

মন্তব্য