শ্রীপুর পৌরসভার মেয়র ইন্দোনেশিয়া, দুদকের মামলায় তাহলে কারাগারে কোন মেয়র?

সাইফুল আলম সুমন,নিজস্ব প্রতিবেদক:
গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভার মেয়র ও গাজীপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনিছুর রহমানকে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে আদলত জামিন অবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দিয়েছেন। ৯ সেপ্টেম্বর রোববার ঢাকার বিভাগীয় বিশেষ জজ মিজানুর রহমান খানের আদালত দুদকের দায়ের করা মামলায় এ আদেশ দেন।

গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শ্রীপুর পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান ৯ দিনের সরকারি সফরে শনিবার (৮ সেপ্টেম্বর) ইন্দোনেশিয়া গেছেন। কিন্তু আত্মসমর্পণ করে কারাগারে গেলেন কোন মেয়র? শ্রীপুরের সাধারন মানুষের মুখে এ নিয়ে চলছে নানা গুঞ্জন।মেয়রের ছোট ভাই শ্রীপুরের মাওনা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মোখলেছুর রহমান বলেন, শনিবার রাতে দক্ষিণ এশিয়ার পল্লী উন্নয়ন বিষয়ক এক সম্মেলনে যোগ দিতে সরকারি সফরে মেয়র আনিছুর রহমান ইন্দোনেশিয়ায় গেছেন। ১৮ সেপ্টেম্বর তিনি দেশে ফিরবেন। ওই মামলায় মেয়রের প্রতিনিধি হিসেবে হাজিরা দিতে গিয়েছিলেন শ্রীপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা যুব কমান্ডের আহবায়ক ও শ্রীপুরে মেয়র আনিছুর রহমানের ঘনিষ্ঠজন হিসেবে পরিচিত নূরে আলম মোল্লা। রোববার রাতে ঢাকা থেকে করা বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালে প্রচারিত “শ্রীপুরের মেয়রসহ দুজন জেল হাজতে” শীর্ষক সংবাদটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার হলে প্রক্সি হাজিরার বিষয়টি ধরা পড়ে।

শ্রীপুর পৌরসভা সুত্রে জানা গেছে, রোববার শ্রীপুর পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান চার মামলায় ও সাবেক হিসাব রক্ষক আব্দুল মান্নান দুই মামলায় আইনজীবী সৈয়দ রেজাউর রহমানের মাধ্যমে ঢাকার বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত মেয়র আনিছুর রহমানকে এক মামলায় জামিন দেন। অন্য তিন মামলায় জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এছাড়া পৌরসভার সাবেক হিসাব রক্ষক আব্দুল মান্নানের দুটি মামলা-ই জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করেন আদালত।

চার মামলার মধ্যে এক মামলায় অভিযোগ থেকে জানা যায়, পৌরসভার রশিদের মাধ্যমে আদায়কৃত ট্যাক্স ও বিবরণীর ৪৩ লাখ ৭৬ হাজার ১০৭ টাকা পৌরসভার তহবিলে জমা না করে আত্মসাৎ করেন তারা। ওই ঘটনায় ২০১৫ সালের ২১ জানুয়ারি দুদকের উপ-সহকারী পরিচালক ফখরুল ইসলাম মামলা করেন। ২০১৬ সালের ১২ জুলাই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা চার্জশিট দাখিল করেন। আরেক মামলায় আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ২০১০ সালে শ্রীপুর পৌরসভার অধীন পাঁচটি হাট-বাজার থেকে ৭ লাখ ৩৫ হাজার ২০০ টাকা আত্মসাৎ করেন। ওই ঘটনায় ২০১৪ সালের ১৭ জুলাই দুদকের উপ- সহকারী পরিচালক ফখরুল ইসলাম মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করে ২০১৫ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর চার্জশিট দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-সহকারী পরিচালক ইকবাল হোসেন।

শ্রীপুর পৌরসভার সচিব বদরুজ্জামান বাদল জানান, মেয়র আনিছুর রহমান রাষ্ট্রীয় সফরে শনিবার (৮ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টায় মালিন্দো এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে ৯ দিনের সফরে ইন্দোনেশিয়া গেছেন। তবে সাবেক হিসাব রক্ষক আব্দুল মান্নান তার মামলায় নিজেই আদালতে হাজির ছিলেন।

মন্তব্য

মন্তব্য