বঙ্গবন্ধু ৪৩তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে জাপান আওয়ামী স্বেচ্ছা সেবক লীগ

মোঃ সহিদুল ইসলাম খোকন সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি // যথাযোগ্য মযা©দায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে জাপান আওয়ামী স্বেচ্ছা সেবক লীগ । গত রোববার (২৬শে আগস্ট) আকাবানে বিভিও হল টোকিও এ উপলক্ষে এক শোকসভার আয়োজন করা হয়। কোরআন তেলোয়াতের মধ্যে দিয়ে সভা অনুষ্ঠিত হয়, অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন জাপান আওয়ামী স্বেচ্ছা সেবক লীগ সভাপতি আমিন রনি । প্রধান অতিথি ছিলেন জাপান আওয়ামী লীগ আহবায়ক কমিটির যুগ্ন আহবায়ক মাজহারুল ইসলাম (মাসুম ), বিশেষ অতিথি ছিলেন জাপান বাংলাদেশ এম্বেসির প্রধান সচিব মোহাম্মদ জুবায়ের হোসেন এবং জাপান আওয়ামী যুবলীগ এর সভাপতি বি এম শাজাহান । মঞ্চ পরিচালনা করেন জাপান আওয়ামী স্বেচ্ছা সেবক লীগ এর সাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইসলাম আজাদ । মঞ্চে উপস্হিতি ছিলেন জাপান আওয়ামী লীগ আহবায়ক কমিটির সম্মানিত সদস্য কায়সার হাসান লাইজু , সাহাবুদ্দিন আহম্মেদ সাবু , জাকির আহম্মেদ , মাজেদুল ইসলাম , জাপান আওয়ামী যুবলীগ লীগ এর সহসভাপতি তোফায়েল আহম্মেদ এবং যুবলীগ এর সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক মীর হোসেন মিলন , যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আশিকুল ইসলাম , সাংগঠনিক সম্পাদক শাজাহান চৌধুরী সাজু , প্রচার সম্পাদক জিয়াউল হক জিয়া ,মহিলা লীগের আহবায়ক লাভলী মোস্তফা , কৃষক লীগ এর সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ দাস এবং বক্তব্যে দেন জাপান ছাত্র লীগ এর বিভিন্ন স্তরের নেত্রী বিন্দুর মধ্যে পিএইচ ডি অধ্যায়ন রত সুমন ফকির , সুমন্ত মজুমদার , আরিফ হাসান , আরাফাত , রুদয়, রাব্বী, রাজিব, সুজন রানা, আমান, রুবেল আহম্মেদ , জাবেদ পাটুরিয়া , মাইদুল সহ আরও অনেকে এবং বক্তব্যে দেন কমিউনিটির নেতা খোকন কুমার নন্দী এবং জাপান বাংলাদেশ চেম্বার এর সাধারণ সম্পাদক ও জাপান আওয়ামী লীগ এর সাবেক সহসভাপতি সলিমুল্লাহ কাজল এবং শুভেচ্ছা বক্তব্যে দেন জাপান আওয়ামী স্বেচ্ছা সেবক লীগ এর সিনিয়র সহসভাপতি সোহেল খান । প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন , আমরা বিজয় অজন করেছি ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর ।সেই বিজয়ের তিন বছর সাত মাসের মাথায় আমাদের সেই বিজয় কলন্কিত করা হয়েছে । ১৫ই আগস্টের হত্যা কান্ডের পর রাষ্ট্রের রাজনৈতিক চরিত্র নষ্ঠ করা হয়েছে । রাষ্ঠের সামাজিক সাংস্কৃতিক চরিত্ব হনন করার প্রচেষ্টা চালানো হয়ছে । নিছক রাষ্ট্র ক্ষমতা পরিবতনের জন্যে ওই হত্যা কান্ড ছিল না । এই হত্যাকান্ড ছিল , ২৪ বছরের ধারাবাহিক সংগ্রামের প্রক্ষিতে আমরা যে স্বাধীন রাষ্ট্র পেয়েছিলাম সেই বাংলাদেশ কে আবার উল্টা পথে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার গভীর ষড়যন্ত্র ।তাই দেশি-বিদেশি নেপথ্যের ষড়যন্ত্রকারীরা যতই ষড়যন্ত্র করুক না কেন নতুন প্রজন্মকে সতক থাকতে হবে ।

মন্তব্য

মন্তব্য