সকালে নাশতার গুরুত্ব জেনে নিন

সারা দিন উদ্যমের সঙ্গে সময় কাটাতে চাইলে সকালের নাশতায় গুরুত্ব দিতে হবে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, সকালে স্বাস্থ্যকর ও ভরপেট নাশতা না খেলে বাকি সময় দেহ–মন কিছুই ঠিকমতো চলবে না। ব্যস্ততার অজুহাতে অনেকেই নাশতা এড়িয়ে যান। নিয়মিত এমন ঘটতে থাকলে ফলাফলটা কিছুদিন পরেই টের পাবেন। দিনের শুরুতে দেহে পর্যাপ্ত জ্বালানির যোগান দিতে হবে। তাই সকালের নাস্তা খাওয়ার গুরুত্ব অত্যাধিক।

সকালে নাস্তা না খেলে যে সমস্যায় পরতে পারেনঃ

ডায়াবেটিসের ঝুঁকিঃ ভেজাল খাবার ও অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপনে এমনিতেই ডায়াবেটিসের ঝুঁকিতে থাকে মানুষ। এর মধ্যে সকালের নাশতা নিয়মিত না খেলে ঝুঁকি আরো বেড়ে যায়। হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির এক গবেষণায় বলা হয়, সকালের খাবার না খাওয়া নারীদের টাইপ ২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি ২০ শতাংশ বেড়ে যায়।

ওজন বৃদ্ধিঃ যারা ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে চান, তাঁরা সকালের খাবার এড়িয়ে চলার চেষ্টা করেন। স্বাভাবিকভাবেই মনে এই যুক্তি কাজ করে যে খাবার কম খেলে ওজন কমে। কিন্তু ঘটনা উল্টোটাই ঘটে। বিশেষজ্ঞরা বলেন, এ নাশতাই বরং ওজন কমাতে সহায়ক হয়। অনেক গবেষণায় এ প্রমাণ মিলেছে যে যাঁরা নিয়মিত নাশতা খান, তাঁদের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার কাজটি অনেক সহজ হয়। আবার এটার কারণে আজেবাজে এবং অতিরিক্ত খাওয়ার প্রতিও আগ্রহ থাকে না।

বিপাকক্রিয়ায় সমস্যাঃ ঘুম থেকে ওঠার পর দেহের সুষ্ঠু বিপাকক্রিয়ার জন্য দরকার খাবার। কাজেই সকালের নাশতার কোনো বিকল্প নেই। যেকোনো বেলার খাবার এড়িয়ে গেলেই তা দেহের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলে। ক্রমেই দেহের বিপাকীয় হার কমে আসে। দীর্ঘ সময় ধরে না খেয়ে থাকলে একটা পর্যায়ে ক্যালরি পোড়ানোর ক্ষমতা থাকে না দেহের।

‘হাংরি ইফেক্ট’ঃ ক্ষুধার্ত থাকলে তার প্রভাব পড়ে দেহে-মনে। একেই বলে ‘হাংরি ইফেক্ট’। এক গবেষণায় বলা হয়, নিয়মিত সকালের নাশতা খেলে গোটা দিন মেজাজ বেশ ভালো থাকে। আর না খেলেই সমস্যা। প্রতিদিন বাদ দিয়ে একটা পর্যায়ে সকাল থেকেই রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমে যায়, অবসাদ ও মাথাব্যথা দেখা দিতে থাকে। সব কিছুতে বিরক্তবোধ হতে পারে।

মুখে দুর্গন্ধঃ সকালে নাশতা না খেলে মুখে দুর্গন্ধ হয়। কোনো মানুষের সামনে এটা খুবই অস্বস্তিকর অবস্থায় ফেলবে আপনাকে। সকালের খাবার কিন্তু মুখে লালা সৃষ্টিতে কাজ করে। এই লালা মুখের ব্যাকটেরিয়াকে ধুয়ে নিয়ে যায়। কাজেই পেটে নাশতা না পড়লে ব্যাকটেরিয়াগুলো দুর্গন্ধের কারণ হয়ে ওঠে।

মন্তব্য

মন্তব্য