রাজধানীর মতিঝিল থেকে ৬৭৩০ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার- ০২

বাংলাদেশ আমার অহংকার এই শ্লোগান নিয়ে র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই মাদক দ্রব্য উদ্ধারে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। দেশের যুব সমাজ তথা নতুন প্রজন্ম’কে মাদকের নীল দংশনের ছোবল হতে পরিত্রান এবং সমাজে মাদকের ভয়াল থাবার বিস্তার রোধকল্পে মাদক বিরোধী অভিযানে অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি র‌্যাবও কঠোর অবস্থান নিয়ে আসছে এবং নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে। সন্ত্রাস, চরমপন্থী ও ধর্মীয় জঙ্গিবাদ নির্মূলের পাশাপাশি মাদক বিরোধী অভিযানে র‌্যাব বলিষ্ঠ পদক্ষেপ রেখে চলেছে। গোয়েন্দা ও নিয়মিত আভিযানিক কার্যক্রমের মাধ্যমে মাদকের চোরাচালান, চোরাকারবারী, চোরাচালানের রুট, মাদকস্পট, মাদকদ্রব্য মজুদকারী ও বাজারজাতকারীদের চিহ্নিত করে তাদের গ্রেফতারসহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। র‌্যাব-২ সব সময়ই মাদকের বিরুদ্ধে বলিষ্ঠ অবদান রেখে চলেছে।
এরই ধারাবাহিকতায় অদ্য ১১/০৭/২০১৮খ্রিঃ তারিখ ১২.৩৫ ঘটিকায় র‌্যাব-২ এর আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, রাজধানীর মতিঝিল থানাধীন ৫,দিলকুশা বানিজ্যিক এলাকা বিআইডব্লিউটিসি ভবনের সামনে পাকা রাস্তার উপরে কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী নিষিদ্ধ নেশা জাতীয় ট্যাবলেট (ইয়াবা) এর বড় একটি চালান সরবরাহ করার জন্য অবস্থান করছে। প্রাপ্তসংবাদের সত্যতা যাচাইয়ের নিমিত্তে র‌্যাবের আভিযানিক দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পালানোর চেষ্টাকালে আসামী ১। মোঃ সুমন (৩০),পিতা-পছু মুদ্দিন, সাং-রামনগর, থানা-ফতুল্লা, জেলা-নারায়নগঞ্জ। ২। মোঃ হেলাল শেখ (৪৫)পিতা-মৃত-আজাহার শেখ, সাং-ফকিরকান্দী, থানা-আমিনপুর, জেলা-পাবনা, অ/চ ১০০/১ মনেশ্বর রোড (শহীদ মিয়ার বাড়ী) ট্যানারী মোড়, থানা- হাজারীবাগ, জেলা- ঢাকা, দ্বয়কে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত আসামীদের হাতে থাকা কার্টুনের ভিতরে প্লাষ্টিকের ক্রীমের কৌটার নিচের অংশে ভিতরের ফাকা জায়গায় বিশেষ কায়দায় ইয়াবা ৬,৭৩০ (ছয় হাজার সাতশত ত্রিশ) পিস,নগদ ৩,০০০/- (তিন হাজার) টাকা, মোবাইল ৩পিস সহ ইয়াবার চালান পাওয়া যায়। তারা আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখকে ফাঁকি দিয়ে অভিনব পন্থায় নিত্য নতুন কৌশলে কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, টেকনাফ সীমান্ত এলাকা হতে ইয়াবা সংগ্রহ করে রাজধানীসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলার মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে সরবরাহ করে আসছে। তারা অতি লাভের আশায়, রাতারাতি ধনী হবার নেশায়, নিজেদেরকে নিষিদ্ধ এ মাদক ব্যবসায় জড়িয়েছে। ধৃত আসামীদের’কে জিজ্ঞাসাবাদে আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে যা যাচাই বাছাই করে ভবিষ্যতে এ ধরনের মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে।

মন্তব্য

মন্তব্য