গাজীপুরে পোশাক কারখানা খুলে দেওয়ার দাবিতে শ্রমিকদের মহাসড়ক অবরোধ

সাইফুল আলম সুমন, নিজস্ব প্রতিবেদক//
গাজীপুরের রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তায় হরাইজন লিমিটেড নামে একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকেরা কারখানা খুলে দেওয়ার দাবিতে একঘণ্টা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। বেলা ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছিল শ্রমিকরা। স্থানীয়রা জানায়, পরে পুলিশ লাঠিচার্জ করে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে দিলে সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। শিল্প পুলিশের পরিদর্শক হাবিবুর রহমান জানান, শ্রমিকদের লাঠিপেটার অভিযোগ ভিত্তিহীন। তাদের বোঝানোর পর দুপুর ১২টার দিকে শ্রমিকেরা অবরোধ তুলে নেয়।

এ ব্যাপারে কারখানার সুইং অপারেটর আলমগীর হোসেন ও তরিকুল ইসলাম জানান, এই মাসের বেতন না দিয়ে আগের বেতন-ভাতা পরিশোধ করে কারখানা কর্তৃপক্ষ ঈদের আগে ছুটি দেয়। ২৩ জুন কারখানা খোলার কথা ছিল। ওইদিন কারখানায় এসে তালা লাগানো দেখে শ্রমিকরা। তখন কর্তৃপক্ষ জানায়, কারখানা অন্যত্র শিফট করা হবে, পরে শ্রমিকরা যেন সেখানে যোগ দেয়। কিন্তু শ্রমিকরা তাতে রাজি না হয়ে বকেয়া বেতনাদি পরিশোধের দাবি জানালে কর্তৃপক্ষ তালবাহানা শুরু করে। রবিবার সকালে কারখানার সামনে অবস্থান নেয় শ্রমিকরা। পরে পুলিশ এসে শ্রমিকদের লাঠিচার্জ করে। এতে কমপক্ষে ১৫ নারী ও পুরুষ শ্রমিক আহত হয়। পরে শ্রমিকেরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে অবস্থান নেয়।

সুইং অপারেটর সীমা, রায়হান ও ইউসুফের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আন্দোলন ছাড়া কারখানা কর্তৃপক্ষ বেতনভাতা পরিশোধ করেনি। অন্যত্র অফিস শিফট করার অজুহাত দেখিয়ে কারখানা বন্ধ ও শ্রমিক ছাঁটাইয়ের কৌশল করছে। কারখানায় ডাইং ও নিটিং ছাড়া সব বিভাগের শ্রমিকদের বের করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। শ্রম আইন অনুযায়ী বেতনভাতা পরিশোধের দাবি শ্রমিকদের।

এ ব্যাপারে কারখানার সহকারী ব্যবস্থাপক আশরাফুল ইসলাম জানান, অ্যাকর্ড কারখানা সুইংয়ের মালামাল নিতে অনাগ্রহ প্রকাশ করছে। তাই কারখানা অন্যত্র শিফট করা হচ্ছে। শ্রমিকেরা এটি বুঝতে চায় না। তারা অন্যত্র কাজে যোগ দিতে চায় না।

মন্তব্য

মন্তব্য