গাজীপুর সিটি নির্বাচনে হাসান উদ্দিন সরকারের পক্ষে প্রচারণা বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের

সাইফুল আলম সুমন, নিজস্ব প্রতিবেদক//
প্রচারণার শেষ মুহূর্তে দলের নেতাদের নিয়ে আজ শুক্রবার ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের বিএনপির মেয়রপ্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার। শুক্রবার (২২ জুন) সকাল থেকেই তারা মহানগরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন। এসময় তাদের সঙ্গে ছিলেন স্থানীয় বিএনপি ও এর অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

এ ব্যাপারে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও ধানের শীষ প্রার্থীর মিডিয়া সেলের প্রধান ডা. মাজহারুল আলম জানান, ধানের শীষের প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে মহানগরের যোগীতলা, চান্দনা মোশারফ স্কুল এলাকায় গণসংযোগ করেছেন। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও গাজীপুর সিটি নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. খোন্দকার মোশারফ হোসেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদ, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মীর নাসির উদ্দিন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নাল আবেদীন ফারুক, আমান উল্লাহ আমান, প্রফেসর ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার, বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক এ কে এম ফজলুল হক মিলন, গাজীপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী সাইয়্যেদুল আলম বাবুল, পেশাজীবী নেতা ডা. এজেড এম জাহিদ হোসেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক ডা. রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, বিএনপি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, গাজীপুর জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-সম্পাদক সোহরাব উদ্দিন, কাপাসিয়া থানা বিএনপির সভাপতি আব্দুল খলিল, সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সেলিম, গাজীপুর জেলা সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ সভাপতি অধ্যাপক নজরুল ইসলামসহ স্থানীয় নেতাকর্মীরা।

তিনি আরও জানান, নেতাকর্মীরা দলে দলে বিভক্ত হয়ে মহানগরের ৩১, ৯, ৪০ ও ৪২, ২৩, ৩৯, ২৭, ২৪, ২৮, ১, ৩২, ৩১, ১৩ নং ওয়ার্ডে গনসংযোগ করেন।

আগামী ২৬ জুন অনুষ্ঠিত হবে গাজীপুর সিটি নির্বাচন। গত ১৫ মে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা ছিল। নির্বাচনের কয়েকদিন আগে সীমানা সংক্রান্ত জটিলতায় উচ্চ আদালতে রিট হলে মাননীয় আদালত নির্বাচন স্থগিতের নির্দেশ দেয়। পরে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মেয়র প্রার্থী এবং নির্বাচন কমিশন এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করলে আপিল বিভাগ নির্বাচনের স্থগিতাদেশ তুলে দেন। নির্বাচন কমিশন আগামী ২৬ জুন নির্বাচনের ভোট গ্রহণের নতুন তারিখ নির্ধারণ করে।

এ সিটিতে মেয়র পদে ৭ জন, ৫৭টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৫৪ জন এবং ১৯ সংরক্ষিত আসনে ৮৪ নারী কাউন্সিলর প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এখানে ভোটার রয়েছে ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৬ জন। মোট ভোট কেন্দ্র ৪২৫টি।

মন্তব্য

মন্তব্য