প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ডাকলেন জেলা যুবলীগের সভাপতি /সম্পাদক

মোঃজাহেদুল ইসলাম জাহেদ ,কক্সবাজার :  চলমান  মাদক বিরোধী অভিযানে র‌্যাবের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে টেকনাফ পৌরসভার কাউন্সিলর একরামুল হক নিহতের ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ডাকে ঢাকা গেছেন কক্সবাজার জেলা যুবলীগের সভাপতি সোহেল আহামদ বাহাদুর ও সাধারণ সম্পাদক শহীদুল হক সোহেল। মঙ্গলবার (৫জুন) তাঁরা দু’জন বিমানে করে ঢাকা গেছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সাধারণ সম্পাদক শহীদুল হক সোহেল জানান, একরাম নিহতের ঘটনায় তদন্তের উদ্যোগ নিয়ে সরকার। এর অংশ হিসেবে সোমবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের দু’জনকে ডেকেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্বররাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল আামাদের সাথে কথা বলবেন জানানো হয়েছে।

শহীদুল হক সোহেল বলেন, ডাক পেয়ে আমরা দু’জন ঢাকায় পৌঁছেছি। আজ রাত ৯টায় স্বররাষ্ট্রমন্ত্রী সাথে এবিষয় আলাপ করা  হবেএবং আগামীকাল প্রধানমন্ত্রী আমাদের সাথে বসবেন বলে কথা রয়েছে।

জেলা যুবলীগের সভাপতি সোহেল আহামদ বাহাদুর সিবিএনকে বলেন, একরামুল হক নিহতের ঘটনায় সারা দেশজুড়ে তোলপাড় চলছে। একরামের ইয়াবা ব্যবসার সংশ্লিষ্টতা না থাকা ও তার মারা যাওয়ার মুহূর্তের অডিও রেকর্ড ভাইরাল হওয়ায় কঠোর সমালোচনা চলছে। এর প্রেক্ষিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিষয়টি অত্যন্ত সিরিয়াসলি নিয়েছেন। তিনি ঘটনা তদন্তের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। একরাম সম্পর্কে হয়তো আমাদের কাছে জানতে চাওয়া হবে। একরাম সম্পর্কে আমরা যা জানি সব প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলবো।

তিনি বলেন, আমাদেরও দাবি একরাম নিহতের ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্ত হোক। সে নিরপরাধ হয়ে থাকে তাহলে এই ঘটনার সাথে যারা যারা জড়িত তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি আমরা দাবি করবো।

এদিকে কক্সবাজার সিটি কলেজের প্রভাষক জমির জামির কর্তৃক আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে ‘কাউয়া’ বলার ঘটনায় প্রসঙ্গে জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল হক সোহেল বলেন, জমির জামির নামে ওই ব্যক্তি যুবলীগের কেউ নয়।  শুনেছি জমিরের আপন ছোট ভায় আমির নিজ এলা র  প্রকাশিত ইয়াবা ব্যবসায়ী             দলের শীর্ষ  নেতাকে নিয়ে এমন অশালীন কথা বলা কেউ আগামী যুবলীগে ঢুকতে পারবে না।

মন্তব্য

মন্তব্য