মাদারীপুরে ঐতিহ্যবাহী গনেশ পাগলের কুম্ভমেলা শুরু

পাপিয়া বাড়ৈ জয়, প্রতিবেদক : ২৮শে মে সোমবার ১৩ই জ্যৈষ্ঠ প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার কদমবাড়ী ইউনিয়নের দিঘীরপাড় মহামানব শ্রী শ্রী গনেশ পাগল সেবাশ্রম সংঘে শুরু হয়েছে উপমহাদেশের ঐতিহ্যবাহী কুম্ভমেলা । দেড়শ বছরের পুরনো এ মেলায় ২৫ থেকে ৩০ লাখ ভক্তের সমাগম ঘটে । সেবাশ্রমটি ৩৬৫ বিঘা জমি নিয়ে অবস্থিত ।
এক রাতের মেলা হলেও চলে পরের দিন ভোর রাত প্রযন্ত । ১৬৭ একর জমিতে কুম্ভমেলা অনুষ্ঠিত হয় । প্রায় ৯ বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে বাড়ী-ঘর, মাঠ-ঘাট, ক্ষেত-খামারের কোন জায়গা খালি থাকে না ভক্তদের পদচারনায় । ১৩৪ বছর পূর্বে জৈষ্ঠ মাসের ১৩ তারিখে ১৩ জন সাধু ১৩ কেজি চাল ও ১৩ টাকা নিয়ে রাজৈর উপজেলার কদমবাড়ী ইউনিয়নের দিঘীরপাড় এ মেলা আয়োজন করা হয় । সেই থেকে শ্রী শ্রী গনেশ পাগল সেবাশ্রমে এ মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে ।
সকাল থেকেই দলে দলে জয় ডংকা বাজিয়ে ও জয় হরিবল ধ্বনিস্বরে সাধু সন্যাসী ও ভক্তবৃন্দরা বাসে, ট্রাকে, ট্রলারে, পায়ে হেটে আসতে থাকে গনেশ পাগল মন্দির প্রাঙ্গনে । বরিশাল, রাজশাহী, রংপুর, যশোর, খুলনা, ফরিদপুর, রাজবাড়ী, মাদারীপুর, শরিয়তপুরসহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকেও দলে দলে মানুষ আসে । এছাড়া পার্শবর্তী দেশ ভারত ও নেপাল থেকেও বহু ভক্তবৃন্দ আসে এ মেলায় । হাজার হাজার ভক্তবৃন্দ, সাধু ও সন্যাসীরা একতারা-দোতারার সুর দিয়ে সারা রাত বিভোর থাকেন এছাড়াও ভক্তরা ধর্মীয় সঙ্গীত ও নৃত্যবাদ্য পরিবেশনের মাধ্যমে সারা রাত অতিবাহিত করেন ।
গনেশ পাগল সেবাশ্রম সংঘের সভাপতি হরিপদ বাড়ৈ, সম্পাক প্রনব কুমার বিশ^াস ও কদমবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান বিধান বিশ^াস সহ অন্যান্যরাও এ মেলাকে সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করার জন্য প্রসাশন ও এলাকাবাসীর সহযোগিতার আশা ব্যক্ত করেন ।
গনেশ পাগল সেবাশ্রম সংঘের সাধারন সম্পাদক প্রনব কুমার বিশ^াস জানান, মেলায় আগত ভক্তদের আপ্যায়নে ১৭০ মন চিড়া, ৬০ মন গুড় ও প্রায় ১হাজার মন ডাল খিচুরী প্রসাদ বিতরান করা হবে এবং দিনটি শান্তিপূর্ন ভাবে উৎযাপনের সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে । এছাড়া এখানে আগত ভক্তদের জন্য নিরাপদ পানি, চিকিৎসা ও স্যানিটেশনের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে । মাদারীপুর ডিবি পুলিশ, র‌্যাব-৮ সদস্য ও রাজৈর থানা পুলিশের সমন্বয় সকল নিরাপত্তার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে বলেও জানান তিনি ।

মন্তব্য

মন্তব্য