তিতাসের দুলারাম পুরে ভাইস চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা প্রত্যাহার দাবীতে মানববন্ধন

মোঃ জুয়েল রানা (তিতাস) কুমিল্লাঃ কুমিল্লার দাউদকান্দিতে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ডাকাত সর্দার মো. ইসমাইল (৩৫) হত্যার ঘটনায় তিতাস উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাহিনুল ইসলাম সোহেল শিকদার এবং তার ছোট ভাই উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক নূর মোহাম্মদ লালন সিকদারকে আসামী করায় ফুঁসে উঠেছে তিতাসবাসী।
আজ বুধবার (১৬মে) উক্ত মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে উপজেলার ভিটিকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের ব্যানারে দুলারামপুর বাজারস্থ দুলারামপুর-আসমানীয়া সড়কের মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন নেতাকর্মীরা।
উক্ত মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, ৬নং ভিটিকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হোসেন মোল্লা, ইউনিয় আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সামছুল আলম মোল্লা, ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আবুল কাশেম, আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ তাহের আলী সরকার, আবদুর রব, যুবলীগ নেতা মোঃ জহিরুল ইসলাম, ইউপি যুবলীগ নেতা মোঃ শফিকুল ইসলাম, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক আবু হোসেন জুয়েল, ইউপি সদস্য মোঃ সাদেক সরকার, মোঃ মজলিস, মোঃ মোশারফ, মোঃ আব্দুল্লাহ, মোঃ শফিকুল ইসলাম, মোঃ মোক্তার, সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার পারভিন বেগম, মায়া বেগম, জোৎসনা বেগম   প্রমূখ।
উল্লেখ্য, গত (২মে) বুধবার মধ্যরাতে উপজেলার বাজরা গ্রামের ডাকাত সর্দার ইসমাইকে গুলি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুত্বর আহত করে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর বৃহস্পতিবার সে মারা যায়। ওই ঘটনায় নিহতের স্ত্রী সুমী আক্তার বাদী হয়ে তিতাস উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাহিনুল ইসলাম সোহেল শিকদার (৪২), উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক নূর মোহাম্মদ লালন শিকদার (৩০), যুবলীগ কর্মী আবু বক্কার (২৮) ও মো. মনির হোসেন (৩০) এবং দাউদকান্দির দেলা (২৬), রতন (৩৫), শেখ ফরিদ (৩০), হাছান (২৬), মতিন (২৮), কালাম (৩০) ও মাসুদ (২৪) আসামী করে দাউদকান্দি মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মন্তব্য

মন্তব্য