ট্রাম্পের পর্নো তারকা স্টর্মি ডেনিয়েলসের দৈহিক সম্পর্কের দাবি অস্বীকার

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের পর্নো তারকা স্টর্মি ডেনিয়েলসের দৈহিক সম্পর্কের দাবি অস্বীকার করেছে হোয়াইট হাউস। মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেল সিবিএসের ‘সিক্সটি মিনিটস’ অনুষ্ঠানে রবিবার স্টর্মি ২০০৬ সালে তার সঙ্গে ট্রাম্পের সম্পর্কের বিষয়ে খোলাখুলি কথা বলেন। এরপরই সোমবার এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউস এ ব্যাপারে মুখ খুলেছে।

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র রাজ শাহ বলেছেন, ‘সাক্ষাৎকারে ডেনিয়েলস যেসব দাবি করেছেন তার কোনোটিই সঠিক নয় বলে মনে করেন প্রেসিডেন্ট।’ শাহ বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট সুস্পষ্টভাবে এসব দাবি অস্বীকার করে আসছেন।’ স্টর্মি ড্যানিয়েলস টিভি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ২০০৬ সালে তার সঙ্গে কীভাবে প্রথম ট্রাম্পের দেখা হয়েছিল। তাদের দুজনের যখন প্রথম শারীরিক সম্পর্ক হয় সেই সময় ট্রাম্প ও ফার্স্টলেডি মেলানিয়ার ছোট সন্তানের বয়স ছিল চার মাস। এরপরও ট্রাম্পের সঙ্গে স্টর্মির শারীরিক সম্পর্ক হয়েছে। স্টর্মি আরও জানিয়েছেন, ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে মুখ বন্ধ রাখার জন্য ট্রাম্পের আইনজীবী মাইকেল কোয়েন তাকে ১ লাখ ৩০ হাজার মার্কিন ডলার দিয়েছিলেন। এ বিষয়ে একটি চুক্তিও হয়েছিল। তবে ওই গোপন চুক্তিতে ট্রাম্প স্বাক্ষর না করায় মামলা করেছেন স্টর্মি।

এদিকে সিবিএসে রবিবার ড্যানিয়েলসের সাক্ষাৎকার প্রকাশ হওয়ার পর হোয়াইট হাউস এবং কোয়েন পুনরায় জানিয়েছে, ট্রাম্পের সঙ্গে ড্যানিয়েলসের কোনো সম্পর্ক ছিল না এবং তাকে কোনো ধরনের হুমকি-ধমকিও দেওয়া হয়নি। ট্রাম্পের আইনজীবী কোয়েন উল্টো ডেনিয়েলসের প্রতিই তার বক্তব্যের জন্য প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। জবাবে ডেনিয়েলস তার মামলায় কোয়েনের বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগ অন্তর্ভুক্ত করেছেন। বিবিসি।

মন্তব্য

মন্তব্য