কালীগঞ্জে টর্চ লাইটের আলোকে কেন্দ্র করে দুইপক্ষের সংঘর্ষে গুরুতর আহত ৩

 

মো. ইব্রাহীম খন্দকার, কালীগঞ্জ (গাজীপুর) কালীগঞ্জে টর্চ লাইটের আলো চোখে পড়াকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে  গুরুতর ৩ জন  আহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। দুইজনের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। রোববার সন্ধ্যার পর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের ছৈলাদী গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। এই ঘটনায় এক পক্ষ কালীগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।

স্থানীয় ও লিখিত অভিযোগে জানা যায়, জামালপুর ইউনিয়নের ছৈলাদী গ্রামের মো. হানিফ আকন্দ (৫২) রোববার মসজিদে মাগরিবের নামাজ পরে কাজী বাড়ির দক্ষিণ পাশ দিয়ে অন্ধকারে টর্চ লাইটের আলো জ¦ালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় ফরহাদ শেখের চোখে টর্চের আলো পড়ে। এতে দুইজনের মধ্যে বাক বিতন্ড হয়। এক পর্যায় লাঠিসোটা নিয়ে দুইজন মারামারিতে লিপ্ত হয়। মো. হানিফ আকন্দকে বাঁচাতে তার বোন লতিফা বেগম (৫৫) এগিয়ে গেলে তাকেও মারধর করে। তাকে তলপেটে লাথি-মুড়া দেয়ায় সে গুরুতর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা আহত ৩ জনকে উদ্ধার করে কালীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রো নিয়ে যায়। লতিফা বেগম ও ফরহাদ শেখের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক থাকায় কর্তব্যরত চিকিৎসক দুইজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।  এই ঘটনায় মো. হানিফ আকন্দের ছেলে মো. আলমগীর হোসেন বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। গতকাল সোমবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে কালীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এস আই) আব্দুর রহমান বলেন, টর্চ লাইটের আলো চোখে পড়ায় উভয়ের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। দুইজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।

মন্তব্য

মন্তব্য