শ্রীপুরে শোকের ছায়া, টিচিং হাসপাতালের মর্গে বাবা-মেয়ের লাশ

সাইফুল আলম সুমন,নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

নেপালে ত্রিভুবন বিমানবন্দরে গতকাল সোমবার বিধ্বস্ত হওয়া ইউএস বাংলা বিমানের দুই যাত্রী  গাজীপুরের শ্রীপুরের নগর হাওলা গ্রামের এফ.এইস প্রিয়ক (৩২) ও তার একমাত্র মেয়ে তামাররা প্রিয়ন্মুখ (৩) নেপালের টিচিং হাসপাতালের মর্গে লাশ হয়ে পড়ে আছেন।

নিখোঁজ হওয়া প্রিয়কের বিধবা মা জানান, তার একমাত্র ছেলে স্ত্রী কন্যাসহ নেপালে ৬ দিনের ভ্রমণের উদ্দেশ্যে বের হন। কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি এবং বার বার মূর্ছা যান। স্বজনদের পাশে গভীর রাতেই শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেহেনা আকতার ও সহকারি কমিশনার (ভুমি) সোহেল রানা দূতাবাস থেকে সব রকমের সাহায্যের আশ্বাস দেনে।

এদিকে আজ মঙ্গলবার(১৩মার্চ) সকাল ১০ টার দিকে নিহত ও আহতদের পরিবারের ৪৬ জন স্বজনদের নিয়ে ইউএস বাংলার আরেকটি ফ্লাইট নেপাল পৌঁছায়। কাঠমান্ডুতে পৌঁছার পর প্রথমেই নিয়ে যাওয়া হয় বাংলাদেশ দূতাবাসে। সেখান থেকে দূতাবাসের গাড়িতে করে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে আপনজনের পাশে।

শ্রীপুরের স্বজনদের মধ্যে ইজাজ আহমেদ মিলন টিচিং হাসপাতালের সামনে থেকে লাইভে দৈনিক দিন প্রতিদিনকে কে জানান, নিখোজ হওয়া প্রিয়ক ও তার মেয়ের লাশের সন্ধান মিলেছে টিচিং হাসপাতালের মর্গে।নিহত ৫০জনের লাশ টিচিং হাসপাতাল মর্গেই রাখা আছে।লাশ দেখে শনাক্ত করার মতো উপায় নেই। সকল লাশ স্বজনরা শনাক্ত করার পরই লাশ দেশে পাঠানো হবে। সে জন্য এক সপ্তাহ সময় লাগতে পারে বলেও জানান তিনি।এই মূর্হূতে টিচিং হাসপাতালের মর্গে কাউকে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না।

মন্তব্য

মন্তব্য