বিএনপিকে ‘ঘরে বসে’ আন্দোলনের পরামর্শ কাদেরের

সড়কে নেমে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি না করে ‘ঘরে বসে’ আন্দোলন করতে বিএনপিকে পরামর্শ দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, বিএনপিই তাদের আন্দোলন কর্মসূচি সংঘর্ষের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে কেউ বাধা দিচ্ছে না। তবে রাস্তা বন্ধ করে কোনো সভা-সমাবেশ করা যাবে না। বিএনপি ঘণ্টার পর ঘণ্টা রাস্তা বন্ধ করে আন্দোলনের নামে মানুষের দুর্ভোগ সৃষ্টি করছে।

রোববার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সেমিনার কক্ষে আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির প্রথম সভায় ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান ড. হোসেন মনসুরের সভাপতিত্ব সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন দলের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুর। উপস্থিত ছিলেন উপ-কমিটির সদস্য ইমরান আহম্মেদ, একাব্বর হোসেন, নূরজাহান বেগম মুক্তা, প্রকৌশলী ফজলুল হক, আবু সালহে মো. সাঈদ প্রমুখ।

শনিবার নয়াপল্টনে বিএনপির কালো পতাকা প্রদর্শনের কর্মসূচি পালন করতে গিয়ে পুলিশের বাধা পাওয়ার পর দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছিলেন, ‘সরকার পরিস্থিতি সংঘাতের দিকে নিতে চাইছে’। এর জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, শান্তিপূর্ণ আন্দোলন যদি করেন, তাহলে ঘরে করুন, অফিসে করুন। রাস্তায় কেন? জনদূর্ভোগ সৃষ্টি করছেন কেন?

বিএনপির ২০১৩-১৫ সালের সহিংস আন্দোলনের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের নামে অশান্তির ক্ষেত্র তৈরি করছেন।

দুর্নীতির মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজার মত তার জামিন বিষয়েও সরকারের কিছু করার নেই জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, এই সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণভাবে আদালতের এখতিয়ার। খালেদা জিয়ার জেলে থাকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে আদালত। তিনি উচ্চআদালতে আপিল করেছেন। উচ্চআদালত জামিন দিলে সরকারের কিছু করার নাই।

তিনি বলেন, আদালতের অনুমতিতে খালেদা জিয়া নির্বাচনে অংশ নিলেও সরকারের কিছু করার নেই। এক্ষেত্রে সরকারের কোনো প্রকার হস্তক্ষেপও নেই।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমাদের নেত্রী (প্রধানমন্ত্রী) বলেছেন, অপকর্ম অপকর্মই। আর অপরাধ অপরাধই। কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

মন্তব্য

মন্তব্য