হারিয়ে যাচ্ছে হাজারো মানুষের ঢল

প্রতিনিধি: মোঃ সানি হোসেন : বাংলা সিনেমার হল বিনোদন কেন্দ্র থেকে হারিয়ে যাচ্ছে হাজারো মানুষের সিনেমা দেখার আগ্রহ । এক যুগের উর্ধে বাংলা সিনেমা হলের আনন্দ বিনোদন হারিয়ে গেছে । পরিবার স্বজন নিয়ে ছুটির দিনে বিনোদন স্থান ছিল সিনেমার হল । স্কুল কলেজ ফাঁকি দিয়ে ও নব বধূকে খুশি করার অন্যতম মাধ্যম ছিলো সিনেমা হল । দিনে দিনে সকল কিছু বৃদ্ধি পেলেও কমছে সিনেমা হলগুলো । সরজমিনে রাজধানী পুরান ঢাকায় আজাদ সিনেমা হল পরিদর্শনকালে ম্যানেজার এসএম হাসান দৈনিক দিন প্রতিদিন পত্রিকার প্রতিনিধিকে জানায়, ১২টার শো-তে সর্ব মোট ১৪টি টিকেট বিক্রি করে । যা সিনেমা হলের এক দিনের বিদ্যুৎ বিলের খরচও হয়না । ১৯২৫ ইং সালে আজাদ সিনেমা পুরান ঢাকার জর্জ কোর্ট এলাকায় ৪০ জন কর্মকর্তা কর্মচারি নিয়ে সিনেমা হলটি চালু হয় । বর্তমানে ১৫ জন কর্মচারি দ্বারা সিনেমা হলটি পরিচালিত হচ্ছে । তাও আবার বেতন ভাতা বকেয়া আছে । সকল সিনেমা হলের মালিকেরা সরকারের দৃষ্টি কামনা করছে । সিনেমা হলগুলোতে আগের মত উপচে পড়া ভিড়, সকল শ্রেণীর ব্যক্তি বর্গ সিনেমা হলমূখি হওয়ার স্বপ্ন দেখে ।

মন্তব্য

মন্তব্য