গলাচিপায় বাঁশবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটি নির্বাচন নিয়ে দূর্নীতি!!

 

 

পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার বাঁশবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটি গঠনে বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের সহযোগীতায় দূর্নীতির প্রতিযোগীতায় একধাপ এগিয়ে বাশঁবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়। সরজমিন ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক০৫.১০.৭৮৫৭.০২.০০৮.০০২.১৭-৮৮৭ তারিখ ০৭/১২/২০১৭ইং স্বারক, এবং ২১/০৫/২০১৩ইং তারিখে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে প্রিজাইডিং অফিসার করে ৪৩১৫ স্বারক ও ২৯(৯) ধারায় গলাচিপা উপজেলা বাঁশবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনী তফসিল ঘোষনা করা হয়।

বাশঁবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ নূরু উদ্দিন সরকারি প্রজ্ঞাপনকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে, নিজের মনগড়া আইন তৈরী করে, নির্বাচনী তফসিল স্কুল নোটিশ বোর্ডে টাংঙ্গিয়ে দেয়ার কথা থাকলেও, প্রধান শিক্ষক নূরু উদ্দিন তা গোপন করে পকেট কমিটির পায়তারা করার নীল নক্সার ফন্দি করেন। স্থানীয় সূত্রে আরো জানা যায়, ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনী তফসিল ঘোষনা অনুযায়ী ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ইং রোজ বৃহস্পতিবার ছিলো প্রার্থী মনোনয়নের শেষ তারিখ, এবং ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭ইং রোজ মঙ্গলবার, মনোনয়ন প্রত্যাহার ও বাছাই পর্বের শেষ দিন। কিন্তু, প্রধান শিক্ষক নূরু উদ্দিনের নীল নক্সাকার কারনে, অনেক সুযোগ্য প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিতে না পেরে ক্ষোভ প্রকাশ করেন, এবং পুনরায় অবাদ সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবি করেন অভিযোগ কারি ও অভিভাবক পরিমল চন্দ্র ভাট ও সঞ্জয় সমাদ্দার। এব্যাপারে, বাশঁবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে গেলে তাকে পাওয়া যায়ইনি। পরে মুঠো ফোনে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে কোন কথা বলেনি। এ ব্যাপারে ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ইং গলাচিপা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা ও প্রিজাইডিং অফিসার মোঃ গোলাম মোস্তফা এর কাছে নির্বাচনী আচারন ও প্রধান শিক্ষকের দূর্নীতির বিষয়ে তুলে ধরলে, তিনি প্রধান শিক্ষককে আইনি ব্যবস্থা সহ পুনরায় তফসিল ঘোষনা করে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি দেন। তৃনমূল পর্যায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দূর্নীতি মুক্তো গড়ার অঙ্গিকার করে কর্তৃপক্ষ একটি সুন্দর কমিটি উপহার দিবে, এটাই জনসাধারণের প্রত্যাশা।

মন্তব্য

মন্তব্য