শ্রীপুরে কৃষক পরিবারের অর্ধশত গাছের মাথা কেটে ফেলার অভিযোগ

গাজীপুরের শ্রীপুরে গত রোববার বিকালে একটি কারখানার সড়ক প্রশস্ত করতে পল্লী বিদ্যুৎ কৃষক পরিবারের প্রায় শতাধিক গাছের মাথা কেটে ফেলেছে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে।জানা যায়, রাজধানীর বাসিন্দা মো.ওয়াজিবুল্লাহ্ নামক এক ব্যবসায়ী বেশ কিছু দিন আগে ফরিদপুর গ্রামে জায়গা ক্রয় করে একটি কারখানা নির্মান কাজ হাতে নেয়। ওই কারখানার প্রবেশ সড়কের দু’পাশে একই গ্রামের মৃত মজিবুর রহমানের ছেলে মো.মাহবুবুর রহমান ও তাঁর আত্মীয় স্বজনের প্রায় অর্ধ শত বিভিন্ন গাছপালা পূর্বে থেকেই রয়েছে। এতে কারখানায় কোন যানবাহন প্রবেশ করতে গেলে একটু সমস্যায় পড়ে। তাই বেশ কিছু দিন ধরেই ওই কারখানার ব্যবস্থাপক (ম্যানেজার) মো. লিয়াকত আলী কৃষক পরিবারকে গাছ কেটে ফেলার হুমকি দিয়ে আসে। তাতে কাজ না হওয়ায় অন্য পন্থা হাতে নেয় তাঁরা। সড়কের ওপর দিয়ে তাঁদের বিদ্যুৎতের লাইন সদ্য বসিয়েছে ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২। পল্লী বিদ্যুৎকে অধিক টাকা ঘোষ দিয়ে লাইনের পাশের গাছ কাটার বাহানায় কৃষক পরিবারের সড়কের দু’পাশের সকল গাছের মাথা কেটে ফেলে তাঁরা।মো.মাহবুবুর রহমান বলেন, আমাদের কোন বার্তা না দিয়েই লাইনের প্রায় দুই শত মিটার দূরের গাছ গুলোর মাথা কেটে সাবাড় করেছে তাঁরা। এতে বুঝা যায় উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে কারখানার সড়ক প্রশস্ত করতেই তাঁরা এমন কাজ করেছে। তাঁদের এমন অযৌত্তিক কাজের ব্যাখ্যা জানতে চাইলে তাঁরা আমাদের বৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়াসহ বিভিন্ন হুমকি দেয়। এ বিষয়ে আমি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি।ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর মাওনা আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ-মহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) মো. কামাল পাশা জানান, এধরণের অভিযোগ ভিত্তিহীন। আমরা লাইনের পাশের গাছের ডালপালা কেটেছি। এতে তাঁরা আমাদের ওপর হামলা করে।
শ্রীপুর থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. জাকির হোসেন জানান, এখনো এ ধরণের কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য

মন্তব্য