মিরপুর মাঠে কুমিল্লাকে সহজেই হারালো খুলনা

মাঝে একদিনের বিরতি শেষে আজ বিপিএলে দিনের প্রথম ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসকে ১৪ রানে হারিয়েছে খুলনা টাইটানস। খুলনার ছুঁড়ে দেয়া ১৭৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১৬০ রানেই থেমে যায় তামিম, মালিকদের ইনিংস। তবে এ জয়ে কেউ উদ্বিগ্ন নয়, কেননা দু’দলেরই শেষ চার নিশ্চিত হয়েছে আগেই।

মিরপুরের মাঠে ১৭৪ রানকে বড় পুঁজিই বলা যায়। সেই রান তাড়া করতে নেমে ইনিংসের শুরুতে স্কোরবোর্ডে কোন রান যোগ হওয়ার আগেই সোলেমন মিরেকে হারায় কুমিল্লা। তবে ধাক্কা কাটিয়ে ইমরুলের সাথে জুটি গড়ে পাওয়ার প্লেতে রানকে সুবিধাজনক জায়গায় নিয়ে যান তামিম।

দলীয় ৬৪ রানে ইমরুল ফিরে যাওয়ার পরেই প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন তামিম ইকবালও। এরপর শোয়েব মালিককে সাথে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেন জস বাটলার। কিন্তু ১২৭ রানের মাঝেই ফিরে যান এ দুজন। দুর্দান্ত খেলতে থাকা মালিককে ফিরিয়ে দেন তারই স্বদেশী বোলার মো. ইরফান। ২৩ বলে ৩৬ রান করেন মালিক।

মালিকের বিদায়ের পর কুমিল্লার জয়ের লক্ষ্যে পৌছানো কঠিন হয়ে পড়ে। শেষের দিকে আবু জায়েদ দুই উইকেট তুলে নিলে সাত উইকেটে ১৬০ রানে থামে কুমিল্লার ইনিংস। এর ফলে ১৪ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে খুলনা।

ম্যাচের শুরুতে টসে জিতে ব্যাটে নেমেই রান তোলা শুরু করেন খুলনার দুই ওপেনার নাজমুল ও ক্লিনজার। একপর্যায়ে ১০ ওভার শেষে খুলনার সংগ্রহ পৌছায় ১ উইকেট হারিয়ে ৮২ রান। এরপর রানের গতি থেমে যায়। ১৬ ওভারে রান দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ১০৮! শেষ ৪ ওভারে খুলনার আরিফুল ও ব্রেথওয়েট মিলে নেন ৬৬ রান। যার ফলে ২০ ওভার শেষে সর্বমোট রান হয় ৬ উইকেটে ১৭৪। খুলনার পক্ষে আরিফুল ২১ বলে ৩৫, শান্ত ২১ বলে ৩৭ ও ব্রেথওয়েট ১২ বলে ২২ রান করেন। খুলনার শেষের দিকে রানের গতি বাড়িয়ে দেয়া ইনিংস খেলার সুবাদে ম্যাচ সেরা হন আরিফুল হক।

মন্তব্য

মন্তব্য