শাকিব-অপু বিয়ের পর কিছুদিন সংসার, তারপর ডিভোর্স

  বিনোদন ডেস্ক : বিয়ের পর কিছুদিন সংসার, তারপর ডিভোর্স। আর বিনোদন পাড়ায় এই ডিভোর্সের খবর শুনা যায় কয়েক মাস পরপরই। বিশেষ করে দর্শকজনপ্রিয় জুটির সংসার ভেঙে গেলে সেটার প্রভাব সাধারণ মানুষের ওপর পড়তে থাকে। এসব নিয়ে দর্শকরা সোশ্যাল মিডিয়াতে বিভিন্ন ধরনের স্ট্যাটাস, কমেন্টস করে থাকেন। আর সেই জনপ্রিয়তার সবার ওপরে রয়েছেন ঢালিউডের অভিনেতা শাকিব খান আর অভিনেত্রী অপু বিশ্বাস।

২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল এই দুই তারকা বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকেই দুজনে বিষয়টি গোপন রাখেন। আর এভাবেই ৮ বছর কেটে যায়। অবশেষে সেই গোপন আর গোপন থাকল না। চলতি বছরের ১০ এপ্রিল তারিখে বোমা ফাটান অপুু বিশ্বাস। ছেলে আব্রাহামকে নিয়ে একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের লাইভে এসে অপু বিয়ে ও সন্তানের বিষয়টি ফাঁস করে দেন।

সেই ঘটনার প্রায় ৯ মাসের মাথায় গতকাল এই তারকা জুটির সংসার ভেঙে গেল। শাকিব খার নিজেই অপুকে ডিভোর্সের চিঠি পাঠিয়েছেন। ডিভোর্সের কথা শাকিব খান স্বীকার করেছেন। তবে অপু এই ব্যাপারে এখনো কিছু বলেনি বলে জানা যায়।

২০০৫ সাল থেকে চলচ্চিত্রে পা রাখেন অপু। আমজাদ হোসেনের ‘কাল সকালে’ ছবির মাধ্যমে ঢালিউডে যাত্রা শুরু করেন এই অভিনেত্রী। ২০০৬ সালে এফআই মানিক পরিচালিত ‘কোটি টাকার কাবিন’ ছবিতে প্রধান নায়িকা হয়ে অভিনয় করেন শাকিব খানের বিপরীতে। এখন পর্যন্ত  টানা ৭২টির বেশি চলচ্চিত্রে (মুক্তিপ্রাপ্ত) জুটি বেঁধে কাজ করেছেন তিনি।

বগুড়ার এই অভিনেত্রী বাংলাদেশ কালচারাল রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন পুরস্কার সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন ৩ বার। আর ২০১৩ সালে ‘মাই নেম ইজ খান’ সেরা চলচ্চিত্র অভিনেত্রী হয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘অনন্ত ভালোবাসা’ ছায়াছবির মাধ্যমে অভিনয় জীবন শুরু করেন শাকিব খান। যদিও তার প্রকৃত নাম মাসুদ রানা। শাকিব দুই বাংলার একজন বিখ্যাত অভিনেতা । তিনি অভিনয় করেন বিখ্যাত নায়ক রাজ্জাক, আলমগীর, মান্না, রিয়াজ, আমিন খান, বাপ্পারাজ, বুলবুল আহমেদসহ আরো অনেকের সাথে। এই অভিনেতা লাক্স-চ্যানেল আই পারফরম্যান্সে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র অভিনেতার পুরস্কারসহ আরো অনেক পুরস্কার পেয়েছেন।

সূত্র: উইকিপিডিয়া।

মন্তব্য

মন্তব্য