নারী-পুরুষ সমতায় বাংলাদেশের অবস্থান আরও দৃঢ়

নারী-পুরুষে সমতা অর্জন বা লিঙ্গবৈষম্য দূর করার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ অবস্থান আরও সংহত করেছে। সমতা অর্জনের বৈশ্বিক সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ৪৭তম। লিঙ্গবৈষম্য দূর করার প্রতিযোগিতায় ভারতসহ দক্ষিণ এশিয়ার সব দেশকে অনেক পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ।

ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের লিঙ্গবৈষম্যবিষয়ক প্রতিবেদনে এ তথ্য দেওয়া হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ‘দ্য গ্লোবাল জেন্ডার গ্যাপ রিপোর্ট ২০১৭’-এ বলা হয়েছে, বাংলাদেশ নারীর জন্য অর্থনৈতিক সুযোগ সৃষ্টি ও অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে অনেক উন্নতি করেছে। ১৪টি সূচকের মধ্যে ৪টিতে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান ১ নম্বরে।

ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম ১৪৪টি দেশের তথ্যের ভিত্তিতে এই প্রতিবেদন তৈরি করেছে। তালিকার শীর্ষে আছে আইসল্যান্ড। তারপরে আছে নরওয়ে। আর নারী-পুরুষে বৈষম্য সবচেয়ে বেশি ইয়েমেনে। ইয়েমেনের অবস্থান ১৪৪তম। মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটির চেয়ে পরিস্থিতি একটু ভালো পাকিস্তানে। ১৪৩তম অবস্থানে আছে পাকিস্তান।

১৪টি সূচকের ভিত্তিতে এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে। প্রাথমিক স্তরে শিক্ষার্থী ভর্তি করার সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ১ নম্বরে। মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষার্থী ভর্তির সূচকেও বাংলাদেশ ১ নম্বরে। গত ৫০ বছরে সরকারপ্রধানের সূচকেও বাংলাদেশের অবস্থান ১ নম্বরে। আর জন্মের সময় নারী-পুরুষ অনুপাতেও বাংলাদেশ ১ নম্বরে। স্বাস্থ্যসম্মত জীবনযাপন, মন্ত্রিত্ব পদ, শ্রমবাজার, উচ্চতর শিক্ষা—এসব সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান পেছনে।

মন্তব্য

মন্তব্য