মেলায় রিটার্ন দিলেই কর কার্ড

আপনি চলতি মৌসুমে আয়কর বিবরণী দেওয়ার কথা চিন্তাভাবনা করছেন? আপনার জন্য সুখবর, আয়কর মেলায় রিটার্ন দিলে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) আপনাকে কর কার্ড দেবে। শুধু ঢাকা ও চট্টগ্রামের করদাতারা এই সুযোগ পাবেন। আধুনিক এই কর কার্ডে আপনার ছবি থাকবে। কর কার্ডধারীরা রাষ্ট্রীয় যেকোনো সেবা প্রাপ্তিতে অগ্রাধিকার পাবেন। কার্ডের পাশাপাশি আপনাকে ‘আমি গর্বিত করদাতা’ লেখা একটি স্টিকারও দেওয়া হবে, যা গাড়ি কিংবা বাড়ির দরজায় লাগাতে পারবেন।
এবারের কর মেলায় প্রথমবারের মতো এ ধরনের কার্ড ও স্টিকার দেওয়ার ব্যবস্থা করল এনবিআর। গতকাল বুধবার থেকে দেশব্যাপী এই কর মেলা শুরু হয়েছে। রাজধানী ঢাকাসহ সব বিভাগীয় শহরে সাত দিন কর মেলা হবে। গতকাল সকালে রাজধানীর কর মেলার উদ্বোধন করেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আবদুল মান্নান। আগারগাঁওয়ের নির্মাণাধীন এনবিআর ভবনে এই কর মেলা হচ্ছে।
এনবিআর সূত্রে জানা গেছে, সব জেলা শহরে চার দিন, ৫৬টি উপজেলায় চার দিন ও ৩৪টি উপজেলায় দুই দিন মেলা হবে। ৭১টি উপজেলায় এক দিন ভ্রাম্যমাণ মেলা অনুষ্ঠিত হবে। ১-৭ নভেম্বরের মধ্যে নিজেদের সুবিধামতো সময়ে জেলা ও উপজেলার আয়োজকেরা এই মেলার আয়োজন করবেন। ৩০ নভেম্বর আয়কর বিবরণী জমার শেষ দিন।
গতকাল রাজধানীর কর মেলায় গিয়ে দেখা গেছে, মেলার উদ্বোধন হয়েছে বেলা ১১টার দিকে। কিন্তু সকাল ১০টার আগে থেকেই শত শত করদাতা মেলা প্রাঙ্গণে জড়ো হন। কেউ আয়কর বিবরণী জমা দিচ্ছেন, কেউ ইলেকট্রনিক কর শনাক্তকরণ নম্বর (ইটিআইএন) নিচ্ছেন। কেউ জানতে এসেছেন কীভাবে বিবরণী লিখতে হয়। সারা দিন এমনই ভিড় ছিল মেলার সব স্টলে।
মিরপুরে বাস করেন গোলাম মইন উদ্দিন। তিনি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। সকাল ১০টার দিকে এসে তিনি নির্ধারিত বুথে রিটার্ন জমা দেন। সব মিলিয়ে ১০-১২ মিনিট সময় লেগেছে। রিটার্ন জমার পর সংশ্লিষ্ট বুথ থেকে সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে ছবিসংবলিত ‘ট্যাক্স আইডি কার্ড’ দেওয়া হয়।
এই বিষয়ে গোলাম মইন উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, ট্যাক্স কার্ড দেওয়ার উদ্যোগটি নবীন করদাতাদের কর দেওয়ায় উৎসাহিত করবে। এটি একধরনের স্বীকৃতি। কর পরিশোধের চালান পকেটে নিয়ে ঘোরা যাবে না। কিন্তু কর কার্ড পকেটে নিয়ে ঘোরা যাবে।
মেলায় করদাতারা আয়কর বিবরণীর ফরম থেকে শুরু করে কর পরিশোধের জন্য ব্যাংক বুথও পাচ্ছেন। করদাতাদের সহায়তা করার জন্য সহায়তা কেন্দ্রও আছে। একই ছাদের নিচে ই-টিআইএন, পুনর্নিবন্ধন, রিটার্ন জমা—সব সেবা মিলছে। করদাতারা শুধু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে আনলেই হবে। এ ছাড়া নারী, প্রতিবন্ধী, মুক্তিযোদ্ধা, প্রবীণ করদাতাদের জন্য আলাদা বুথ আছে। এ ছাড়া অনলাইনে রিটার্ন জমা বা ই-ফাইলিংয়ের সুযোগও রয়েছে।
গতকাল সারা দেশের বিভিন্ন মেলা থেকে ৭৯ হাজার ১১২ জন করসংক্রান্ত সেবা নিয়েছেন। ৩১ হাজার ৪১ জন করদাতা রিটার্ন জমা দিয়েছেন। এতে আয়কর পাওয়া গেছে প্রায় ২০৮ কোটি টাকা।
সকালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অর্থ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আশা করি এবার মেলা থেকে তিন হাজার কোটি টাকা রাজস্ব পাওয়া যাবে।’
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এনবিআরের চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান। এ ছাড়া বক্তব্য দেন ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সহসভাপতি ফজলে ফাহিম।

মন্তব্য

মন্তব্য